‘রাষ্ট্রভিত্তিক বাংলাদেশ’ : এপার বাংলা-ওপার বাংলা কেন?

‘রাষ্ট্রভিত্তিক বাংলাদেশ’ : এপার বাংলা-ওপার বাংলা কেন?

সিদ্দিক মাহমুদুর রহমান,

আমাদের দেশের নাম ‘বাংলাদেশ’। ‘বাংলা'(বাঙালী বা বাংলাদেশী) একটি সুনির্দিষ্ট জাতি ও বাংলা ভাষার একমাত্র নিদর্শন (অথরিটি)’বাংলাদেশ’। আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত!
বাংলাদেশের পশ্চিমে, উত্তরে ও পূর্বে ভারতের কিছু অঞ্চলের মানুষ বাংলা ভাষার মতো ভাষায় কথা বলে, তারা ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মানুষ। পশ্চিমবঙ্গ কিন্তু বাংলাদেশ নয়।

বাংলা ভাষার মতো ভাষায় কথা বলে ভারতের অহম/আসাম রাজ্যের মানুষ, সেটিও বাংলাদেশ নয়, ত্রিপুরা রাজ্যে মানুষ বাংলা ভাষায় কথা বললেও ওরা বাংলাদেশ নয়!

বাংলা বা বাংলার মতো ভাষায় কথা বলার অর্থ কিন্তু বাঙালী হয়ে যাওয়া নয়! বিশ্বের বহু দেশের মানুষ বাংলায় কথা বলতে পারে। যেমন- আমেরিকার মানুষ ইংরেজীতে কথা বলে, কিন্তু তারা ‘ইংরেজ’ না। কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড বা সাউথ আফ্রিকার মানুষ ইংরেজীতে কথা বলে, কিন্তু ওরা কেউই ‘ইংরেজ’ না! এই পার্থক্যটা আমাদের ভালো করে বুঝতে হবে।

তাই ‘এপার বাংলা, ওপার বাংলা ‘কনসেপ্ট’টা সম্পূর্ণ ভুল।
ব্রিটেন ও আমেরিকার মানুষ নিজেদেরকে ‘এপার ইংরেজ, ওপার ইংরেজ’ বলে না। তাইওয়ান ও গণপ্রজাতন্ত্রী চীনের মানুষ নিজেদেরকে ‘এপার চিনা, ওপার চিনা’ বলে না। উত্তর কোরিয়া ও দক্ষিণ কোরিয়ার মানুষ নিজেদেরকে ‘এপার কোরিয়ান, ওপার কোরিয়ান’ বলে না।

সারা বিশ্ব আজ আর ‘জাতিভিত্তিক’ নয়, ‘রাষ্ট্রভিত্তিক’ হয়ে গিয়েছে। বাংলাদেশ একটি ভিন্ন রাষ্ট্র, পশ্চিমবঙ্গ একটি ভিন্ন রাষ্ট্রের একটি ক্ষুদ্র প্রদেশ। পশ্চিমবঙ্গের মানুষ ভারতীয়, ওরা নিজেদেরকে ‘বাঙালী’ দাবী করলে ভারত থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশের সাথে যুক্ত হতে হবে। নচেত নয়!

লেখক: গবেষক, লেখক, অনুবাদক, মুদ্রা ও ডাকটিকিট সংগ্রাহক এবং ভিজিটিং ফেকাল্টি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

নিউজটি শেয়ার করুন




themesads

© All rights reserved © 2020 crimefolder.com
কারিগরি সহযোগীতায়: Creative Zone IT